মহামায়া লেক, চট্টগ্রাম

Kayaking at Mahamaya Lake
মহামায়া লেক, ছবিঃ মহিন রিয়াদ

চট্টগ্রামে অবস্থিত মহামায়া লেক বা হ্রদ বাংলাদেশের বৃহত্তম কৃত্রিম হ্রদগুলোর একটি। চট্টগ্রাম অঞ্চলে কৃষিকাজের সেচ প্রকল্প হিসেবে এই লেকটি তৈরি করা হয়। পরিবারের সবাইকে নিয়ে ঘুরে আসার জন্য আদর্শ একটি স্থান মহামায়া লেক।

পাহাড়-গুহা-ঝর্নার সম্মিলনে অপূর্ব সৌন্দর্যে ঘেরা এই লেকটি আপনার ভালো লাগবেই। লেকের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করতে লেকের পাশেই ক্যাম্পিং করতে পারেন। প্রায় ১১ বর্গ কিলোমিটার আয়তনের এই ইকোপার্ক ও লেকে চাইলে আপনি প্যাডেল বোটিং ও কায়াকিং করতে পারবেন।

যা যা দেখবেন

Fly fishing at Mahamaya Lake
মহামায়া লেকে মাছ ধরা। ছবিঃ মহিন রিয়াদ

লেকঃমহামায়া লেকটির সৌন্দর্য সত্যিই চোখ জুড়ানো। বৃষ্টি বা জোছনার দিনে এই সৌন্দর্য বেড়ে যায় বহুগুণে। লেকের পাড়ে বসে পাহাড়ের কোলে সূর্যাস্ত দেখে মুগ্ধ হবেন নিশ্চিত। লেকে কায়াকিং, নৌকা ভ্রমণ করতে পারবেন।

প্রায় সারা বছরজুড়ে লেকে মাছ ধরার উৎসব লেগে থাকে, আগ্রহ থাকলে ছিপ নিয়ে আপনিও মাছ ধরায় নেমে পড়তে পারেন। তবে সেক্ষেত্রে আগে অনুমতি নিয়ে নেবেন।

পাহাড় ও গুহাঃমহামায়া লেকের চারদিকে বেশ কিছু গুহা আছে। এগুলোর অধিকাংশই মানুষের প্রবেশের উপযুক্ত নয়। তবে স্থানীয় গাইডের সহায়তা নিয়ে ঘুরে দেখতে পারেন গুহাগুলো।

ঝর্ণাঃ মহামায়া লেকের কাছেই আছে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় জলপ্রপাতগুলির কয়েকটি যেমন খৈয়াছড়া ঝর্ণা, নাপিত্তাছড়া ঝর্ণা, কমলদহ ঝর্ণা। সময় পেলে এই ঝর্নাগুলো ঘুরে দেখতে পারেন।

এছাড়াও সীতাকুণ্ড ইকো পার্ক, চন্দ্রনাথ পাহাড় ও মন্দির, বাঁশবাড়িয়া সৈকত ও গুলিয়াখালি সৈকতে ঘুরে আসতে পারেন।

কিভাবে যাবেন

সড়ক পথে ঢাকা থেকে হানিফ, গ্রীন লাইন, শ্যামলীসহ প্রতিদিন অসংখ্য বাস চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। সেগুলোর যে কোন একটিতে চড়ে নেমে যাবেন মিরসরাইয়ের ঠাকুরদিঘি বাজারে।

ভাড়া পড়বে বাস ভেদে ৪৫০-১৫০০ টাকা। সেখান থেকে সিএনজি অটোরিকশায় চলে সরাসরি চলে যেতে পারবেন মহামায়া লেকে। ভাড়া নেবে ২০-৩০ টাকা। লেক ও ইকোপার্কে প্রবেশ ফি ২০ টাকা।

এছাড়াও আপনি রেল ও আকাশপথেও যেতে পারবেন চট্টগ্রামে।

কী খাবেনঃ

মহামায়া লেক এলাকায় তেমন খাওয়ার রেস্টুরেন্ট নেই। সম্ভব হলে সাথে করে খাবার নিয়ে যাবেন। তবে মিরসরাই বাজারে ভালো মানের রেস্টুরেন্ট আছে সেখানে গিয়েও খেতে পারেন।

কোথায় থাকবেন

মহামায়া লেকের আশপাশে রাত যাপনের ব্যবস্থা নেই। রাত কাটানোর জন্য আপনাকে মিরসরাই যেতে হবে। সেখানে অনেকগুলো মাঝারি মানের হোটেল আছে। হোটেল ভেদে ভাড়া পড়বে ৫০০-১৫০০ টাকা।  

যা করবেন না

সাঁতার না জানলে লেকের পানিতে গোসল করতে নামবেন না। স্থানীয় কোন গাইডকে সাথে না নিয়ে আশেপাশে ঘুরতে যাবেন না । ময়লা-আবর্জনা ফেলে লেকের পানি ও পরিবেশ নষ্ট করবেন না।

ছবিঃ মহিন, উইকিমিডিয়া