মহামায়া লেকে ক্যাম্পিং

camping in mohamaya lake
লেকের পাড়েই রয়েছে ক্যাম্পিং করার ব্যবস্থা।

বাংলাদেশের মত ঘনবসতিপূর্ণ দেশে একটু নির্জনে, শান্ত পরিবেশে ক্যাম্পিং করার সুবিধা খুব কম। দেশের পার্বত্য অঞ্চলের অনেক স্থান ক্যাম্পিং করার জন্য উপযুক্ত হলেও নিরাপত্তার কারণে বড় দল না হলে সেখানে ক্যাম্পিং করা যায় না। তো আপনি যদি একা বা দল নিয়ে ক্যাম্পিং করতে চান, তাহলে আপনার জন্য মহামায়া লেক হতে পারে আদর্শ। এখানে আপনি খুব কম খরচে ক্যাম্পিং করার পাশাপাশি বারবিকিউ এবং লেকের জলে কায়াকিং করারও সুযোগ পাবেন। তাবু ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা আয়োজনকারীরাই দেবেন। আপনি শুধু আপনার ব্যাকপ্যাক নিয়ে ক্যাম্পিং করে আসতে পারবেন।  

মহামায়া লেক চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে অবস্থিত। এটি বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম কৃত্রিম হৃদ। প্রায় ১১ বর্গ কিলোমিটার আয়তনের এই লেক বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের আওতাধীন সেচ প্রকল্পের জন্য খনন করা হয়। কৃত্রিমভাবে খনন করা হলেও এটির সৌন্দর্য প্রাকৃতিক লেকের চেয়ে কোন অংশে কম নয়।

যা যা দেখবেন

পাহাড়ের কোলঘেঁষে আঁকাবাঁকা লেকটি অপুর্ব সুন্দর। লেকের কোল ঘেঁষে পাহাড় থেকে নেমে এসেছে বেশ কিছু ছোট-বড় ঝর্ণা। কায়াকিং করতে করতে ঝর্ণাগুলোও দেখে আসতে পারেন। রাতে ক্যাম্পিং করলে দিনের বিভিন্ন সময়ে লেকটি ভিন্ন ভিন্ন রূপে দেখা দেয়। ক্যাম্পিং করলে রাত ও ভোরে লেকের অসাধারণ দৃশ্য আপনাকে মুগ্ধ করবে। চাইলে আশেপাশের পাহাড়েও ঘুরে আসতে পারেন।

kayaking in mohamaya lake
ভোরের অপুর্ব স্নিগ্ধতায় মহামায়া লেক।

কিভাবে যাবেন

সড়ক পথে ঢাকা থেকে ফেনী পর্যন্ত স্টার লাইন চলাচল করে। যানজট না থাকলে মাত্র ৩ ঘণ্টায় পৌঁছে যাবেন ফেনীর মহীপালে। ভাড়া নেবে ৩২০ টাকা। সেখান থেকে ঠাকুরদীঘি বাজার যেতে লোকাল বাসে মাত্র ৩০-৪০ মিনিট লাগে। এছাড়াও হানিফ, গ্রীন লাইন, শ্যামলীসহ চট্টগ্রামের যে কোন বাসেও সরাসরি মিরসরাইয়ের ঠাকুরদিঘি বাজারে নামতে পারেন। সেক্ষেত্রে আপনাকে চট্টগ্রামের ভাড়া গুনতে হবে। ফেনীতে নামলেই সবচেয়ে সুবিধাজনক হয়।  

ঠাকুরদীঘি বাজার থেকে সিএনজি চালিত অটোরিকশায় ১০ টাকা করে নেবে মহামায়া লেকের গেট পর্যন্ত। লেকে প্রবেশ ফি ২০টাকা।

ক্যাম্পিং

লেকে ক্যাম্পিং করতে চাইলে অন্তত ৩-৪ দিন আগেই বুকিং দিতে হয়। জনপ্রতি ৬০০ টাকায় ফুল প্যাকেজ। বুকিংয়ের জন্য কল করতে পারেন ০১৮১৬১১০৩০০ (শামিম), ০১৭১৯৩৯৯৯১৫, ০১৬১৬৭৯৬৯৬৯ এই নম্বরগুলোতে।

ক্যাম্পিং প্যাকেজ শুরু হয় সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরদিন সকাল ৮টা পর্যন্ত। এর মধ্যে থাকবে তাবু ও রাতে থাকার অন্যান্য জিনিসপত্র, রাতের খাবার (ভাত, ভর্তা, ডাল, মুরগির মাংস), বারবিকিউ (চিকেন ও পরোটা) এবং সকালের নাস্তা (ডিম খিচুড়ি। বুকিং দেয়ার সময় ৫০০ টাকা অগ্রিম পাঠাতে হয়।

জেনে নিন

ক্যাম্পিং শুধুমাত্র পুরুষদের জন্য, আপনার সাথে নারী সঙ্গী থাকলে, অথবা আপনি নারী হলে রাত্রিযাপন করতে পারবেন না। কায়াকিং খরচ আলাদা দিতে হয়। প্রতি ঘণ্টা ২০০ টাকা প্রতি কায়াকে। একটি কায়াকে দুজন বসতে পারবেন। মানে জনপ্রতি ১০০ টাকা ঘণ্টা খরচ হবে।

ক্যাম্পিং স্পটে তেমন ভালো টয়লেটের ব্যবস্থা নেই। রাতে মশার উৎপাত হতে পারে, মশার কয়েল সঙ্গে রাখতে পারেন। তাবুর ভেতরে আলোর জন্য ছোট টর্চ সঙ্গে রাখতে পারেন।